কিভাবে ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা পর্যন্ত সহবাস করা যায় দেখুন

সহবাস নিয়ে রীতিমতো হাজারো প্রশ্ন পাওয়া যায় অনেকের কাছ থেকেই। যেমন বেশি সময় সহবাস করতে পারছেন না, বা ১ মিনিটেরও কম সময়ে বীর্যপাত হয়ে যাচ্ছে। তারা প্রতিদিন অনলাইনে ঘাটাঘাটি করে বিভিন্ন ঔষধ খাচ্ছে কিন্তু কাজ হচ্ছে না। আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা পর্যন্ত সহবাস করা যায়। তবে একটা কথা মাথায় রাখতে হবে যে বাজারে পাওয়া যায় এমন অনেক ওষুধ আছে। কিন্তু আমার ব্যক্তিগত মতামত, ওষুধ খেয়ে যৌন মিলন করা উচিৎ নয়। এক্ষেত্রে ধীরে ধীরে যৌন শক্তি হারানোর সম্ভাবনা থাকে। কারন প্রতিটি ঔষধেই পাশ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। আপনাদের কিছু ভূল ধারনার কথা তুলে ধরলাম নিচে সব গুলো মনযোগ সহকারে পড়বেন। 

কত বছরে মাল হয়,মিলনের সময় নারীর করনীয়, মিলনের আগে করনীয়,
শারীরিক মিলন পদ্ধতি ছবি

যৌনমিলনের কত মিনিট পর বীর্যপাত হওয়া স্বাভাবিক?

এই বেপাটি না জানার কারনে অনেকেই ভাবে যে তার মধ্যে কোন সমস্যা আছে কারন তার মনে হয় যে তার যৌনশক্তি কম। একজন পুরুষের প্রথবার বীর্যপাত ১ মিনিটেও হতে পারে এতে ঘাবরানোর কিছু নেই। দিন যত যাবে যত সহবাস করবেন সময় বাড়তে থাকবে তবে যৌনমিলনের স্বাভাবিক সময় হচ্ছে ৫ থেকে ৭ মিনিট, সর্বোচ্চ ১০-১৫ মিনিট। তাই আপনার যদি ৫ মিনিটে বীর্যপাত হয় সেটি স্বাভাবিক বিষয়। 

মেয়েরা কত সময় মিলন করতে পারেঃ

ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা বেশি সময় সহবাস করতে পারে তবে আপনাকে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে তা হচ্ছে - যৌনমিলনের পূর্বে আপনার স্ত্রীকে পুরো পুরি ভাবে উত্তেজিত করতে হবে। চুম্বন সহ বিভিন্ন ভাবে তাকে উত্তেজিত করলে অল্প সময়েই পরিপূর্ণ তৃপ্তি দেয়া সম্ভব।

দীর্ঘ সময় মিলন করার পদ্ধতিঃ

আপনি যদি নতুন বিয়ে করেন এবং আপনার বীর্যপাত এর সময় যদি ৩-৫ মিনিটও হয় এতে ঘাবরানোর কিছুই নেই। কারন প্রথম প্রথম অল্প সময়ে বীর্যপাত হওয়া স্বাভাবিক তবে ৫-৭ মিনিট হলে এটি স্বাভাবিক সময়। তবে নিচে কিছু  পদ্ধতি সম্পর্কে বলা হলঃ

১.মিলনের সময় নিজের চিন্তা শক্তিকে অন্য কোন বিষয়ে মগ্ন রাখতে হবে। 

২. বীর্য বের হওয়ার একটু আগে মিলন করা থামিয়ে দিন একটু সময় নিয়ে তারপর আবার করলে সময় বাড়বে। 

৩. প্রতিদিন সকালে দুই চামচ খাটি মধু হালকা গরম পানিতে মিশিয়ে নিয়মিত পান করুন।

৪. সহবাসের আগে দুধ পান করুন। 

৫. সহবাসের সময় পুরুষাঙ্গ হাত দিয়ে ধরা থেকে বিরত থাকতে হবে।  কারন হাত লাগলে বীর্যপাত হয়ে যেতে পারে। 

৬. পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং চিন্তামুক্ত থাকতে হবে।  

যেসব খাবার যৌন শক্তি বৃদ্ধি করেঃ

১. ডিমঃ প্রতিদিন সকালের নাস্তায় অন্তত একটি করে ডিম রাখুন এতে যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে এবং শরীরও কর্মশক্তি পাবে ।

২. দুধঃ খাঁটি দুধ, দুধের সর, মাখন ইত্যাদি খাবারে প্রচুর পরিমাণে প্রাণিজ-ফ্যাট আছে যা যৌন শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

৩. কলাঃ মানবদেহের যৌনরস উত্‍পাদন বাড়াতে সাহায্য করে তাই খাবারের তালিকায় কলা রাখুন। 

৪. বাদাম ও বিভিন্ন বীজঃ বিশেষ করে চিনা বাদাম, কাজু বাদাম, পেস্তা বাদাম, কুমড়োর বীজ, সূর্যমূখীর বীজ, ইত্যাদি সেক্স হরমোন গুলো ঠিক মতো কাজ করার জন্য এই কোলেস্টেরল অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

৫. তৈলাক্ত মাছঃ ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী।

৬. ডার্ক চকোলেটঃ গবেষণায় জানা গেছে যে ডার্ক চকোলেট খেলে সঙ্গীর প্রতি আকর্ষণবোধ বেড়ে যায।

এছাড়াও গরুর মাংস, শিমের বীচি, খেজুর, মধু, রসুন, পালং শাক ও অন্যান্য সবজি, কফি বা চা, রঙিন ফল যেমন আঙ্গুর, কমলা লেবু, তরমুজ, ইত্যাদি।


এতে যদি কাজ না হয় বেশি সমস্যা মনে হয় ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। নিজের ইচ্ছামত ঔষধ নির্বাচন করা ঠিকনয়। এছাড়াও টভি সয় বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে বিভিন্ন ঔষধের প্রচার প্রচারনা করা থাকে। যাচাই বাছাই ছাড়া এসকল ঔষধ সেবন করা ঠিক নয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ