কোষ্ঠকাঠিন্য বা পায়খানা বন্ধ হলে করনীয় | কি খেলে মল নরম হবে দেখুন

কোষ্ঠকাঠিন্য মানেই বিরক্তিকর একটি বেপার এটি ছোট বড় সবারই হতে পারে। কোষ্ঠকাঠিন্য মানেই পায়খানা ক্লিয়ার না হওয়া বা কষা হওয়া। পায়খানা না হওয়ার বা কষা হওয়ার সহ মল শক্ত ও ছোট আকারের হয় পায়খানার চাপ আসে না। পেটে চাপ বা কোত দিয়ে মলত্যাগ করতে হয় আবার অনেক সময় পায়খানা কষা হলে মলের সাথে রক্ত পড়তে পাড়ে এবং করার পরও অস্বস্তিকর অনুভূতি হয়। এছাড়াও পেট ফাপ দিয়ে থাকা বা বমিও হতে পারে। আজ আপনাদের পায়খানা ক্লিয়ার না হওয়ার কিছু কারন বলব। 

পায়খানা কষা, পায়খানা না হওয়া, পায়খানায় রক্ত, পায়খানা শক্ত,

পায়খানা কষা বা কোষ্ঠকাঠিন্যের কারনঃ

১. পানি কম খাওয়া 

২. আঁশজাতীয় বা ফাইবার যুক্ত খাবার, শাক-সবজি ও ফলমূল কম

৩. দুগ্ধজাত খাবার অত্যাধিক পরিমাণে খেলে

৪. কোন শারিরিক পরিশ্রম না করে সারাদিন শুয়ে বসে থাকলে 

৫. অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা বা অবসাদের ফলে

৬. অন্ত্রনালীতে ক্যান্সার হলে

৭. ডায়াবেটিস হলে

৮. খাবার ঠিক মত চিবিয়ে না খেলে 

৯. মসলাযুক্ত খাবার বেশি খেলে 

১০. পায়খানার বেগ পেলে চেপে রাখলে বা সময় মত পায়খানা না করলে।

পায়খানা কষা হলে কি ঔষধ খাবেনঃ

পায়খানা কষা হলে বা একদমই না হলে প্রথম অববস্থায় বা ডাক্তারের পরামর্শ না নিয়ে কোন ঔষধ খাওয়া যাবে না।  আগে জানতে হবে পায়খানা না হওয়ার বা কষা হওয়ার কারনটা আসলে কি। তবে প্রথমে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ঘরোয়া উপায় বেছে নিতে হবে। 

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ঘরোয়া উপায়ঃ

১. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে পানি পান করতে হবে বা ইসুব গুলের ভুশি এবং সারাদিনে পর্যাপ্ত পরিমানে পানি পান করতে হবে।

২. মসলাযুক্ত খাবার বা ভাজাপোড়া এরিয়ে চলতে হবে। 

৩. প্রতিদিন নিয়ম করে কিছু সময় হাটাচলা বা হালকা বেয়াম করতে হবে।

৪. খাবারের তালিকায় শাকসবজি থাকতে হবে।।

৫. প্রতিদিন কলা খেতে পারেন কলায় পায়খানা ক্লিয়ার হয়।

অবস্থার উন্নতি না দেখলে অবশ্যই একজন ডাক্তারের পরামর্শ মত চিকিৎসা নিতে হবে। 

বাচ্চাদের পায়খানা না হলে কি করবঃ

বাচ্চাদের নিয়মিত পায়খানা না হলে মানে দিনে অন্তত একবার পায়খানা না হলে সেই সাথে বাচ্চাকে অসুস্থ বা অখুসি লাগলে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যেতে হবে কারন ফর্মুলা খাওয়ানো বাচ্চাদের দিনে অন্তত একবার মলত্যাগ করা স্বাভাবিক। এধরনের বাচ্চা যদি ২ দিনের বেশি সময় ধরে পায়খানা না করে তাহলে ধরে নিতে হবে বাচ্চার কোষ্ঠকাঠিন্য আছে।  

পায়খানা কালো হওয়ার কারণঃ

কালো রঙের চকোলেট বা কোন খাবারের কারনে মলের কালার পরিবর্তন হতে পারে। তবে খেয়াল রাখতে হবে আপনার পায়খানা নরম বা ক্লিয়ার হচ্ছে কিনা। যদি পায়খানা ঠিক মত না হয় পায়খানা শক্ত বা অল্প পরিমানে হয় তাহলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা ধরে নেয়া যেতে পারে৷ 

কোষ্ঠকাঠিন্য হলে বা পায়খানা না হলে কি কি সমস্যা হয়ঃ

কোষ্ঠকাঠিন্য এমনিতেই একটি বিরক্তিকর অসুখ কিন্তু এর বাইরেও কোষ্ঠকাঠিন্য এর কারনে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে যেমন -রক্তাল্পতা, অবসাদ(ক্লান্তি), অনিদ্রা, চোখে ব্যথা, চোখের নিচে কালি পড়া, মাথা ঘোরা, কোমর ব্যথা, ক্রমান্বয়ে আলস্য বৃদ্ধি পাওয়া এবং মনোযোগ হ্রাস পাওয়া ইত্যাদি। 

যদি এমন সমস্যা গুলো আপনার মধ্যে থাকে তাহলে উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী নিজের অভ্যাস পরিবর্তন করুন এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিন আসা করি আল্লাহ সুস্থ করে দিবেন।  

তথ্যসূত্রঃ প্রথমালো, জী বাংলা নিউজ,  যুগান্তর ইত্যাদি।....... 

ভাল লাগলে আমাদের ওয়েবসাইটের অন্যান্য পোস্ট পড়ে আসবেন। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ